Breaking News
বিবাহ নিবন্ধন

পশ্চিমবঙ্গ বিবাহ নিবন্ধন পদ্ধতি । ম্যারেজ রেজিস্ট্রেশন ফরম ও কিভাবে আবেদন করবেন

বিবাহ নিবন্ধন বা ম্যারেজ রেজিস্ট্রেশন কি?

ম্যারেজ সার্টিফিকেট বা বিবাহের শংসাপত্র হল একটি আইনত প্রমাণ পত্র যার মাধ্যমে প্রমাণিত হয় যে দুটি নারী-পুরুষ বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ। পশ্চিমবঙ্গে বিবাহ নিবন্ধন বা ম্যারেজ রেজিস্ট্রেশন করা হয় হিন্দু বিবাহ আইন ১৯৫৫ ও বিশেষ বিবাহ আইন ১৯৫৪, ইন্ডিয়ান ক্রিশ্চান বিবাহ আইন ১৮৭২, পার্শী বিবাহ ও বিচ্ছেদ আইন ১৯৩৬ -এর অধীনে। ২০০৬ সালে ভারতীয় সুপ্রিম কোর্ট মহিলাদের সুরক্ষার্থে এই ব্যবস্থাটি বাধ্যতামূলক করেছে।

ম্যারেজ শংসাপত্র বা ম্যারেজ সার্টিফিকেট এর সুবিধাগুলি কি কি?

ম্যারেজ সার্টিফিকেট একজোড়া নারী-পুরুষকে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হওয়ার প্রমাণ হিসাবে কাজ করে ও সামাজিক নিরাপত্তা প্রদান করে। এছাড়া সরকারি কাগজপত্র যেমন পাসপোট, রেশন কার্ড, প্যান কার্ডের নাম পরিবর্তন ও আরো অন্যান্য নথিপত্রের জন্য এই ম্যারেজ সার্টিফিকেটের প্রয়োজন হয়ে থাকে। মহিলাদের সামাজিক ও আইনগত সুরক্ষা প্রদান করে।

ম্যারেজ পোর্টাল কি?

পশ্চিমবঙ্গ সরকার বিবাহ নিবন্ধনের প্রক্রিয়াকে সহজ করার জন্য একটি অনলাইন পোর্টাল চালু করেছে যার মাধ্যমে সকল সম্প্রদায়ের পাত্র-পাত্রী বা স্বামী-স্ত্রী অনলাইনে নিবন্ধন করতে পারে এবং অবিলম্বে বিবাহের শংসাপত্র পেতে পারে। এই ম্যারেজ পোর্টালের প্রাথমিক উদ্দেশ্য হলো কাগজের ব্যবহারকে ন্যূনতম করা এবং ম্যারেজ নিবন্ধনের প্রক্রিয়া গুলোকে সহজ সরল করা। এই পোর্টাল টি ২০১৮ সালের ১লা ডিসেম্বর থেকে অনলাইন বিবাহ নিবন্ধন প্রক্রিয়া শুরু করেছে।

অনলাইন ম্যারেজ রেজিস্ট্রেশন বা বিবাহ নিবন্ধনের যোগ্যতার মানদন্ড কি কি?

  • অনলাইন ম্যারেজ রেজিস্ট্রেশন এর সময় পাত্রের বয়স ২১ বছর ও পাত্রীর বয়স ১৮ বছরের কম হওয়া উচিত নয়।
  • বিবাহ নিবন্ধনের সময় পাত্র-পাত্রী বা স্বামী স্ত্রী অবশ্যই একসাথে থাকতে হবে।
  • বিবাহ নিবন্ধন রেজিস্টার এর সময় কোন পক্ষের একাধিক স্বামী বা স্ত্রী থাকা উচিত নয়।
  • পশ্চিমবঙ্গের যে জেলা থেকে বিবাহ নিবন্ধনের আবেদন করা হবে সেখানে স্বামী-স্ত্রীকে বা পাত্র-পাত্রীকে কমপক্ষে এক মাস একসঙ্গে থাকতে হবে।

পশ্চিমবঙ্গের অনলাইন বিবাহ নিবন্ধন এর জন্য কি কি ডকুমেন্টস এর প্রয়োজন?

  • পাত্র-পাত্রী বা স্বামী-স্ত্রীর পাসপোর্ট সাইজ ছবির স্ক্যান।
  • উভয়ের হস্তাক্ষর এবং নিরক্ষর হলে আঙুলের ছাপ LTI স্ক্যান ।
  • উভয়ের বর্তমান ঠিকানার প্রমান নথিপত্র স্ক্যান করা।
  • উভয়ের বয়সের প্রমাণপত্র স্ক্যান করা।
  • সামাজিক বিয়ের পরবর্তীকালে যদি রেজিস্ট্রেশন করতে হয় তাহলে আমন্ত্রণপত্র, পুরোহিত বা স্থানীয় পঞ্চায়েতের সংস্থার কাছ থেকে একটি হলফনামা।

অনলাইন বিবাহ রেজিস্ট্রেশন ফি কত ?

অনলাইন বিবাহ রেজিস্ট্রেশন ফ্রি কত টাকা লাগবে সেটা জানতে https://rgmwb.gov.in/ ওয়েব পেজটি ব্রাওজারে ওপেন করুন অথবা বিবাহ রেজিস্ট্রেশন অফিশিয়াল পোর্টাল ক্লিক করুন। তারপর ডানদিকে মেনুবারে Public Info তে Fees তে ক্লিক করন।

বিবাহ রেজিস্ট্রেশন ফ্রিস 1

এরপর ড্রপডাউন মেনু থেকে আপনার প্রয়োজনীয় অপশনটি সিলেক্ট করুন আর জেনে নিন কত টাকা ফ্রিস লাগবে।

বিবাহ রেজিস্ট্রেশন ফ্রিস 2

বিবাহ নিবন্ধন বা রেজিস্ট্রেশন ফি

অনলাইন ম্যারেজ রেজিস্ট্রেশন পদ্ধতি

পশ্চিমবঙ্গ সরকারের ম্যারেজ ডেডিকেটেড পোর্টাল থেকে পাত্র-পাত্রী বা স্বামী-স্ত্রী অনলাইনে নিবন্ধন করতে পারবেন। প্রয়োজনীয় কাগজপত্র আপলোড সমেত আবেদনপত্র পুরণ করতে হবে এবং সেটি যথাযথভাবে যাচাই করে তাদের বিবাহের স্বীকৃতি হিসাবে শংসাপত্র দেওয়া হবে আর এই অনলাইন ব্যবস্থাটি স্বচ্ছ দক্ষ এবং কাগজ বিহীন।

আবেদনকারীরা অনলাইন বিবাহ নিবন্ধন প্রক্রিয়া শুরু করার আগে যে কাজ গুলি করতে হবে তা হল

  • আপনার কম্পিউটার ম্যালওয়্যার বা ভাইরাস মুক্ত থাকা প্রয়োজন।
  • ক্যাশ মেমরি এবং ব্রাউজার কুকিস পরিষ্কার করতে হবে।
  • নিশ্চিন্ত করুন যে আপনার ইন্টারনেটের গতি ০.৫ এমবিপিএস এর বেশি।
  • ডকুমেন্টস স্ক্যান করার জন্য মোবাইল ফোন ব্যবহার করবেন না সঠিক ফ্লাটবেদ স্ক্যানার ব্যবহার করুন।
  • অফিশিয়াল পোর্টালটিতে কাজ করার সময় মোবাইল ইন্টারনেট ব্যবহার করবেন না।
  • আপনার ওয়েব ব্রাউজারের পপ-আপ সক্রিয় করা হয়েছে সে ব্যাপারে নিশ্চিন্ত হন।
  • পাত্র-পাত্রী স্বামী-স্ত্রীর মোবাইল এবং ইমেইল আইডি থাকতে হবে।
  • আরও জানতে এখানে ক্লিক করুন

ম্যারেজ রেজিস্ট্রেশন অনলাইন প্রক্রিয়াটি নিচে ফটো সমেত বিস্তারিত ভাবে দেওয়া হল:

১। প্রথমে অফিশিয়াল ওয়েবসাইট- www.rgmwb.gov.in -এ প্রবেশ করুন অথবা এখানে ক্লিক করুন

২।এরপর নিচের ছবিতে দেখানো মত ‘রেজিস্ট্রার ইয়োর ম্যারেজ’ (Register Your Marrage) এর উপর ক্লিক করুন

বিবাহ নিবন্ধন প্রক্রিয়া ১

এরপর পরবর্তী পেজে দেওয়া নিয়মাবলী গুলি পড়ে ‘ক্লিক হেয়ার টু এপ্লাই অনলাইন’ (Click Here to Apply Online)-এ ক্লিক করুন

বিবাহ নিবন্ধন প্রক্রিয়া ২

পরবর্তীত পপ আপ পেজে দেওয়া নিয়মাবলীগুলি পড়ে প্রসিড (Proceed) -এ ক্লিক করুন।

বিবাহ নিবন্ধন প্রক্রিয়া ৩

এখন নীচে দেওয়া ফটোর মতো একটি ফরম প্রদর্শিত হবে । এখন ফরমটি থেকে সিলেক্ট রিলিভ্যান্ট অ্যাক্ট -র ড্রপ ডাউন মেনু থেকে তিনটি আইনের থেকে আপনার প্রয়োজনীয় একটি বেছে নিন। এরপর ফরমটির প্রতিটি অংশ যেমন ডিটেলস অফ হাজব্যান্ড, ডিটেলস অফ ওয়াইফ, ডিটেলস অফ সোশ্যাল ম্যারেজ, ডিটেলস অফ চিল্ড্রেন, ডিটেলস অফ রেজিস্ট্রেশন এরকম প্রত্যেকটি মেনুতে ক্লিক করে ফরমটি যথাযথভাবে পূরণ করুন। এবং প্রয়োজনীয় ডকুমেন্টস ও উভয়ের হস্তাক্ষর আর যদি নিরক্ষর হয় তাহলে আঙ্গুলের ছাপ এল টি আই দিয়ে আপলোড করুন।

বিবাহ নিবন্ধন প্রক্রিয়া ৫
বিবাহ নিবন্ধন প্রক্রিয়া ৬

এরপর তালিকা থেকে পছন্দ অনুযায়ী ম্যারেজ অফিসার নির্বাচন করুন এবং সেই ম্যানেজ অফিসারের কাছে আবেদন করুন।

এরপর পরবর্তীতে নির্দেশাবলী এবং আবেদনের ক্রমিক নম্বর সহ একটি এসএমএস এবং মেইল পাবেন, আপনার নির্বাচিত তারাও অনুরূপ একটি এসএমএস ও ইমেইল পাবে। এরপর আবেদনের সময় আপলোড করা ডকুমেন্টসগুলো অরিজিনাল নিয়ে ম্যারেজ অফিসারের সাথে যোগাযোগ করুন।

আবেদনের ক্রমিক নাম্বার টির মাধ্যমে আপনার অ্যাপ্লিকেশনটির স্ট্যাটাস দেখতে নীচে ক্লিক করুন।
অনলাইন ম্যারেজ অ্যাপ্লিকেশন স্ট্যাটাস

*এছাড়া আরো পড়ুন- পশ্চিমবঙ্গ সরকারের রূপশ্রী প্রকল্পে মেয়েদের বিয়ের সময় এককালীন ২৫০০০ টাকা অনুদান

Share This:
Advertisement

Check Also

passport

অনলাইনে পাসপোর্ট আবেদন করার পদ্ধতি। কিভাবে খুব সহজে অনলাইনে পাসপোর্ট এর জন্য আবেদন করবেন। How to apply for passport online 2023।

অনলাইনে পাসপোর্ট আবেদন :- বন্ধুরা আমাদের সকলেরই প্রিয় একটি সুপ্ত ইচ্ছা হলো বিদেশ ভ্রমণ। এবং …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *