Breaking News
indian women 5 business ideas

Indian Women 5 Business Ideas । মেয়েদের ঘরে বসে ব্যবসা । মেয়েদের জন্য ব্যবসা

Indian Women 5 Business Ideas । মহিলারা গৃহস্থালির কাজ থেকে মুক্ত হয়ে নিজের একটি পরিচয় তৈরি করুন:
বর্তমান যুগে মহিলারা কোন অংশেই পুরুষদের থেকে পিছিয়ে নেই, সামাজিক পরিচয়ের পাশাপাশি অর্থনৈতিক ক্ষেত্রে‌ও তারা নিজের জায়গা তৈরি করে নিয়েছে ও স্বাবলম্বী হয়েছে। কিছু গৃহিণী তারা তাদের জীবনের মূল্যবান সময়গুলি পরিবারের জন্য উৎসর্গ করেছে কিন্তু তাদের নিজস্ব কোন পরিচয় নেই। এই সকল গৃহিণীদের মধ্যে অনেকেই গৃহস্থালি কাজের পাশাপাশি তাদের নিজস্ব সামাজিক পরিচয় তৈরি করতে চায় ও অর্থনৈতিকভাবে স্বাবলম্বী হয়ে তারা তাদের পরিবারকে আর্থিকভাবে সহযোগিতা করতে চায়। এই পোস্টটি ‘মেয়েদের ঘরে বসে রোজগারের উপায়’ এই সকল গৃহিণী দের জন্য এমন পাঁচটি বিজনেস আইডিয়া শেয়ার করতে যাচ্ছে যেগুলোর মাধ্যমে তারা কম সময় ব্যয় করে ঘরে বসে ভালো মুনাফা অর্জন করতে পারবে। নিজেদের সামাজিক পরিচয়ের পাশাপাশি আর্থিক স্বাধীনতা তারা পাবে। আপনি যদি আপনার জীবনকে নতুনভাবে শুরু করতে চান তাহলে এই নিবন্ধটি শেষ পর্যন্ত পড়ুন, এর মাধ্যমে আপনি জানতে পারবেন যে আপনি কোন ব্যবসা শুরু করতে পারেন যার দ্বারা আপনার নিজস্বতা তৈরী করতে পারবেন।

মেয়েদের ঘরে বসে ব্যবসা

মহিলাদের জন্য সাইট বিজনেস আইডিয়াঃ । Indian Women 5 Business Ideas

যেসকল মেয়েরা বা গৃহিণীরা পড়াশোনা শেষ করেছে অথবা করছে, তারা যদি বাড়ি থেকে কিছু ব্যবসা শুরু করতে চায় তাহলে এই ধারণাগুলো তাদের জন্য খুবই উপকারী হতে পারে। তাহলে আসুন এই ধারণাগুলো সম্বন্ধে জেনে নেওয়া যাক মেয়েদের ঘরে বসে ব্যবসা সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য।

বিভিন্ন ধরনের রান্না শেখানোর ক্লাস / ফুড হোম ডেলিভারিঃ

আপনি যদি বিভিন্ন আইটেমের ভাল রান্না করতে পারেন বা সুস্বাদু খাবার তৈরি করতে পারেন, আপনার তৈরি খাবার খেয়ে সবাই যদি খুব প্রশংসা করে তাহলে আপনি রান্নার ক্লাস শুরু করতে পারেন। আপনার বাড়ির ছোট ঘরে বা রান্নাঘরে এই ক্লাস শুরু করতে পারেন, আপনার এই রান্নার ক্লাসে রেস্তোরাঁয় আপনি যে খাবার গুলো পেতে পারেন সেগুলোই তৈরি করুন যেমন বিভিন্ন ধরনের চাইনিজ ডিস, পিৎজা, চিকেন ও মাটন এর বিভিন্ন আইটেম, মাছের বিভিন্ন আইটেম, সুপ, বিভিন্ন ধরনের গ্রেভি এছাড়া আপনার জানা ভিন্ন ধরনের আইটেম গুলো শেখানো শুরু করুন। প্রত্যেকেই বাড়ির প্রতিদিনের কমন খাবার নিজেরা তৈরী করে কিন্তু নতুন কিছু শেখার জন্য তারা অবশ্যই আপনার সাথে যোগাযোগ করবে ও আপনার কাছে বিভিন্ন ধরনের খাবার তৈরি শিখতে আসবে। এছাড়া আপনি ঋতু অনুযায়ী কিছু বিশেষ ডিস যেমন আইসক্রিম, কেক, স্নাক্স, সেক স্পেশাল তৈরির জন্য নির্দিষ্ট দিনের কোর্স প্রোভাইড করতে পারেন। সপ্তাহের শেষে ছোট ছোট গ্রুপ তৈরি করে এই ধরনের ক্লাসগুলো নেওয়া শুরু করতে পারেন। ধীরে ধীরে মানুষ আকৃষ্ট হবে। একই সাথে আপনি ইউটিউব চ্যানেল তৈরি করে আপনার কুকিং ক্লাসকে আরো বেশি মানুষের কাছে পৌঁছে দিতে পারবেন। এবং এর দ্বারা আপনি ধীরে ধীরে সামাজিক পরিচিতি ও অর্থনৈতিক স্বাধীনতা তৈরি করতে পারবেন।

এছাড়া আপনি যদি ভাল সুস্বাদু রান্না চটপট করতে পারেন তবে ‘ফুড হোম ডেলিভারি’ কাজটিও করতে পারেন। বিভিন্ন অনুষ্ঠানের রান্নার দায়িত্ব নিতে পারেন। তাছাড়া পিঠা,চানাচুর,লাড্ডু জাতীয় মুখোরচক খাবারগুলি তৈরি করে অনলাইনে বিক্রি করতে পারেন।

মেয়েদের জন্য ব্যবসা’র দ্বিতীয় ধারনা- বুটিকঃ

মেয়েরা বা গৃহিনীরা আপনাদের বাড়ি থেকে আপনারা এই বুটিক ব্যবসাটি শুরু করতে পারেন। বর্তমানে সবচেয়ে চাহিদা যুক্ত ফ্যাশনের পোশাক যেমন জিন্স, টপস, সালোয়ার সেট, লেহেঙ্গা, লং ফ্রগ বিভিন্ন ধরনের মেয়েদের পোশাক এখানে রাখতে পারেন। আবার একই সঙ্গে ম্যাচ করে লেটেস্ট ডিজাইনের জুয়েলারি, সাইড ও হ্যান্ড ব্যাগ রাখতে পারেন। এই বুটিকে মহিলাদের যাবতীয় চাহিদার ফ্যাশন ডিজাইন আইটেম রাখা যেতে পারে। আপনি আপনার বাড়ির ছোট অংশে এই বুটিক শোরুম টি তৈরি করতে পারেন এরপর ভালো সাড়া পেলে এটিকে বড় জায়গা নিয়ে ভালো ভাবে শুরু করতে পারেন। এরই পাশাপাশি আপনি যদি সেলাইয়ের কাজ জানেন তাহলে এটিও আপনি শুরু করতে পারেন মেয়েদের বিভিন্ন ধরনের ফ্যাশনেবল পোশাক সেলাই করে সেখান থেকেও ভালো অর্থ উপার্জন করতে পারেন। যদি সেলাইয়ের কাজ নাও জানেন তাহলে কাজ জানে এমন কাউকে নিয়োগ করতে পারেন ও অর্ডার নিয়ে পোশাক তৈরি করতে পারেন। এটিও অত্যন্ত চাহিদাযুক্ত লাভজনক ব্যবসা।

গৃহসজ্জার জন্য বিভিন্ন আইটেমঃ

বর্তমান সময় প্রত্যেকটি মানুষ তার ঘর বাড়ি সাজানোর উপর ভীষণ ভাবে জোর দিয়ে থাকে সেইজন্য তারা আর্ট ক্রাফটের প্রতি খুবই আগ্রহী হয়। বিভিন্ন ধরনের গৃহশয্যা সামগ্রী যেমন ফুলদানি, পেইন্টিং, ঝুলন্ত আইটেম, বেডশীট, টেবিল কভার, আর্ট ইত্যাদি শৈখীন জিনিস তারা বাড়িতে সাজিয়ে রাখে। আপনি যদি এগুলোর মধ্যে কোন সামগ্রী তৈরি করতে জানেন বা নতুনত্ব কোন গৃহসজ্জার আইটেম তৈরি সম্বন্ধে আপনার ধারণা থাকে তাহলে আপনি সেগুলো তৈরি করে বাজারে বিক্রি করতে পারেন। আপনার শহরের বা আশেপাশের শহরে ছোট প্রদর্শনীতে স্টল তৈরি করে বিক্রি করতে পারেন অথবা আশেপাশের গৃহসজ্জার শোরুম গুলির সঙ্গে যোগাযোগ করে তাদের কাছে বিক্রি করতে পারবেন। এর মাধ্যমে আপনি ভালো অর্থ উপার্জন করতে পারবেন এছাড়া আপনি চাইলে এই আইটেমগুলো তৈরী করা শেখানোর ক্লাস শুরু করতে পারেন, বর্তমানে অনেক মেয়েরা এই ধরনের হাতের কাজ শিখতে আগ্রহী, আপনি সহজেই বাড়ি থেকে তাদের এই ধরনের কাজ শিখিয়ে অর্থ উপার্জন করতে পারেন।

টিউশন অথবা কোচিং ক্লাসঃ

আপনি যদি পড়াশোনায় ভালো হয়ে থাকেন তাহলে ঘরে বসে টিউশান ক্লাস চালিয়ে যথেষ্ট অর্থ উপার্জন করতে পারেন। যে বিষয়টি আপনি খুব ভালোভাবে জানেন এবং ভালো ভাবে অন্যকে শেখাতে পারেন সেই বিষয়ের উপর ক্লাস শুরু করতে পারেন। আপনার শেখানোর ধরন অনুযায়ী আপনি ছোট বা বড় ক্লাসের ছাত্রদের ক্লাস নিতে পারেন এবং সেই অনুযায়ী আপনি আপনার টিউশন ফি নির্ধারণ করতে পারেন। আপনি যদি একটু উঁচু ক্লাস ছাত্রদের বিশেষ কোন বিষয়ের উপর ক্লাস নেওয়া শুরু করেন সে ক্ষেত্রে আপনি ৫০০ থেকে ২৫০০ টাকা পর্যন্ত টিউশন ফি নিতে পারেন আর যদি ছোট কোন ক্লাসের শিশুদের বিশেষ কোন বিষয়ে উপর ক্লাস নেন তাহলে আপনি ৫০০ থেকে ১৫০০ টাকা পর্যন্ত ছাত্র প্রতি মাসে আয় করতে পারেন। আপনি বাচ্চাদের বাড়িতে গিয়ে বা আপনার নিজের বাড়িতে এই ক্লাস নিতে পারেন। তবে বর্তমানে করোনার কারণে স্কুল, কলে্‌ কোচিং বন্ধ এক্ষেত্রে আপনি অনলাইনে ঘরে বসে ক্লাস নিতে পারেন এবং যেখানে একসাথে আপনি অনেক ছাত্রকে সেখানে পড়াতে পারেন এর সাহায্যে আপনি ঘরে বসে ভালো অর্থ উপার্জন করতে পারেন।

মেয়েদের ঘরে বসে ব্যবসা’র পঞ্চম ধারনা- অনলাইন রিসেলিংঃ

বর্তমানে সোশ্যাল মিডিয়া যেমন হোয়াটসঅ্যাপ, ইনস্টাগ্রাম, ফেসবুক এর মাধ্যমে বিভিন্ন ধরনের অনলাইন ব্যবসা চলছে, যেখানে অনেক মেয়ে ও মহিলারা কাজ করে প্রতিমাসে যথেষ্ট পরিমাণ অর্থ উপার্জন করছে। এই অনলাইন ব্যবসাটি কিন্তু খুব সহজ এর জন্য আপনার কেবল মোবাইল ফোন আর ইন্টারনেট সংযোগ প্রয়োজন পড়বে। এবং ব্যবসায় ইনভেস্টমেন্ট করতে পারেন আবার না করেও অর্থ উপার্জন করতে পারেন। আপনি অন্যের কাছ থেকে পণ্য নিয়ে যেমন মিসো, অ্যামাজন, ফ্লিপকার্ট প্রভৃতি সংস্থার প্রদর্শিত পণ্যগুলো আপনি রিসেলিং করে মোটা কমিশন পেতে পারেন। এছাড়া আপনি পাইকারদের কাছ থেকে গয়না, কাপড়, শাড়ি, পোশাক, চপ্পল, সাজসজ্জার আইটেম, ঘরের প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র ইত্যাদি যেকোনো জিনিস তাদের কাছ থেকে কিনে আপনি আপনার লভাংশ রেখে অনলাইনের মাধ্যমে বিক্রি করতে পারেন। এগুলো আপনি ফেসবুক-এ বিভিন্ন গ্রুপে এবং নিজের লাইভ সেশনের মাধ্যমে প্রদর্শন করে পণ্য বিক্রি করতে পারেন। বর্তমানে এই রিসিলিং ব্যবসা করে মহিলারা খুব ভালো উপার্জন করছে। আর এগুলো শেখার জন্য আপনি ইউটিউব-এ বিভিন্ন ভিডিও পেয়ে যাবেন। ছোট ছোট শহরের মহিলারাও এই কাজে যোগ দিচ্ছে এবং যথেষ্ট উপার্জন করছে। আপনাকে শুধু একটি ভালো ফেসবুক গ্রুপ তৈরি করতে হবে অথবা ভালো গ্রুপে যোগদান করতে হবে সেখানে আপনি আপনার বিক্রির আইটেমগুলো প্রদর্শন করে অর্ডার পেতে পারেন এবং দরদাম ঠিক হওয়ার পরে আপনি তার সঙ্গে কথা বলে কুরিয়ারের মাধ্যমে বিক্রিত পণ্য কাছে পাঠাতে পারেন। এছাড়া মিসোর মত অনলাইন সংস্থার পণ্যগুলো শুধু মধ্যস্থতা করে বিক্রি করতে পারেন এবং যেখান থেকে আপনি ভালো অর্থ উপার্জন করতে পারেন। আপনি একবার যদি এই ব্যবসায় প্রবেশ করেন আর পরিচিতি তৈরি করে নেন তাহলে খুব সহজেই এ কাজগুলোকে উপস্থাপন করতে পারবেন এবং অনলাইনের মাধ্যমে ভালো অর্থ ইনকাম করতে পারবেন। তবে সেই সঙ্গে আপনাকে খুব সাবধানে কাজ করতে হবে কারণ অনলাইনে প্রতারণা হবার সম্ভাবনা যথেষ্ট রয়েছে। আপনি যদি শুধু মধ্যস্থতার মাধ্যমে (কোন পণ্য নিজে সংগ্রহ না করে) অনলাইন ব্যবসা শুরু করতে চান তাহলে মিসো অথবা অ্যামাজনের প্রোডাক্ট গুলোর এফিলেট শুরু করতে পারেন। আর যদি নিজেই করতে চান তাহলে হোলসেলার বা পাইকারদের সঙ্গে কথা বলে সেই পণ্যগুলোর বিক্রি শুরু করতে পারেন।

*আরো পড়ুন- মহিলাদের জন্য সরকারী ঋণ যোজনাগুলির বিবরন

মেয়েরা বা গৃহিণীরা উপরের উল্লেখিত মেয়েদের জন্য ব্যবসা’র যেকোনো একটি ব্যবসা ঘরে বসে শুরু করতে পারেন। ধৈর্য সময় ও শ্রম এর মাধ্যমে আপনি নিজেকে স্বাবলম্বী করে তুলতে পারেন। আর এর জন্য কোন নির্দিষ্ট বয়স সীমা নেই আপনি যেকোনো বয়সে যেকোনো জায়গায় থাকুন না কেন গ্ৰাম বা শহরে সেখান থেকেই আপনি এই ব্যবসাগুলো শুরু করতে পারেন এবং নিজের পায়ে দাঁড়াতে পারেন। আশা করি আমাদের এই ‘Indian women 5 business ideas’ নিবন্ধটি আপনার ভালো লেগেছে এবং আপনাকে আর্থিকভাবে এগিয়ে যাওয়ার জন্য আমাদের শুভ কামনা রইল। কিছুটা চেষ্টা, ধৈর্য, একাগ্রতা ও শ্রম আপনাকে আপনার লক্ষ্যে পৌঁছুতে সাহায্য করবেই।

Share This:
Advertisement

Check Also

লকডাউন পরবর্তী বিনিয়োগ আইডিয়া

After Lockdown Business Ideas in Bengali । ৭টি লকডাউন পরবর্তী লাভজনক বিনিয়োগ আইডিয়া

লোনদরকার (loandarkar): After Lockdown Business Ideas in Bengali – লকডাউনের ফলে আপনি কি আপনার আর্থিক …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *