Breaking News
Student Credit Card 2021 West Bengal

Student Credit Card 2021 Best Offer 10 Lakhs । স্টুডেন্ট ক্রেডিট কার্ড ২০২১-২৩ সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য

West Bengal Student Credit Card: আপনি কি সন্তানদের উচ্চশিক্ষার খরচ নিয়ে চিন্তায় আছেন, তাদের উচ্চশিক্ষার জন্য প্রয়োজনীয় অর্থ কোথা থেকে পাবেন। অর্থ জোগাড় করতে পারবেন কিনা অর্থের অভাবে তাদের পড়াশোনা মাঝপথে শেষ হয়ে যাবে নাতো। আপনার চিন্তার কারণ যদি এগুলো হয় তাহলে এই পোষ্ট টি আপনার জন্য। আমাদের এই রাজ্য পশ্চিমবঙ্গে চালু হয়ে গেল নতুন এক শিক্ষা ঋণ ব্যবস্থা স্টুডেন্ট ক্রেডিট কার্ড-এর মাধ্যমে। ৩০ শে জুন ২০২১ মাননীয়া মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এই নতুন ছাত্র ঋণ বা ক্রেডিট কার্ডের সূচনা করেন। তিনি জানিয়েছেন ছাত্রদের উচ্চশিক্ষার জন্য অর্থের প্রয়োজন হলে এই স্টুডেন্ট ক্রেডিট কার্ডের মাধ্যমে ঋণ হিসাবে সেই অর্থ নিতে পারবে পড়ুয়ারা আর এর গ্যারান্টার হবে সরকার নিজে। এই কার্ডটি উদ্বোধন কালে মাননীয় মুখ্যমন্ত্রীর স্পষ্ট জানিয়ে দিয়েছেন স্নাতক ও স্নাতকোত্তর এমনকি ডাক্তারি, আইএএস, আইপিএস, ডব্লিউবিসিএস বা কোন ডিপ্লোমা পড়ার জন্য ছাত্র-ছাত্রীরা যেকোনো সময় এই কার্ডের মাধ্যমে ঋণ পেতে পারে এছাড়া যারা ব্যাংক, রেলওয়ে, স্টাফ সিলেকশন কমিশন বা অন্যকোন পেশাদার পাঠক্রমের জন্য কোন বৈধ প্রতিষ্ঠানে পড়াশোনা করলে এই ঋণ পাওয়া যাবে।এখন এই পোস্টটির মাধ্যমে আমরা এর বিস্তারিত তথ্য তুলে ধরবো। তো চলুন শুরু করা যাক।

পশ্চিম বঙ্গ স্টুডেন্ট ক্রেডিট কার্ড


স্টুডেন্ট ক্রেডিট কার্ড বা এস সি সি কি?


গত ৩০ শে জুন ২০২১ মাননীয় মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় নবান্ন থেকে সাংবাদিক সম্মেলনের মাধ্যমে পশ্চিমবঙ্গের বসবাসকারী ছাত্র-ছাত্রীদের পড়াশোনার জন্য প্রয়োজনীয় আর্থিক সাহায্যের জন্য একটি কার্ড চালু করেন যার নামকরণ করেছেন স্টুডেন্ট ক্রেডিট কার্ড (Student Credit Card) বা সংক্ষেপে SCC।

কারা পাবে এই স্টুডেন্ট ক্রেডিট কার্ডের সুবিধা?


এক্ষেত্রে আবেদনকারীকে কমপক্ষে ১০ বছর ধরে পশ্চিমবঙ্গের বাসিন্দা হতে হবে ও বয়স চল্লিশের কম হতে হবে। দশম শ্রেণী থেকে শুরু করে স্নাতক ও স্নাতকোত্তর ও প্রতিযোগিতামূলক পরিক্ষার শিক্ষার্থীরা এই কার্ডটি পাবেন।

স্নাতকোত্তর: এমএ, এমএসসি, এমকম, এমডি, এম এস, এম বি এ, এল এল এম, এম এম ইউ এস, প্রভৃতি। 

স্নাতক: বিএ, বিএসসি, বিকম, এমবিবিএস, বিবিএ, এলএলবি প্রভৃতি

ডিপ্লোমা: এ এন এম, জি এন এম, পি জি ডি বি এ, পিজিডিএম, পিজি ডিপ্লোমা, অল ডিপ্লোমা ইন পলিটেকনিক, প্যারামেডিকেল, প্রভৃতি

সার্টিফিকেট: আইটিআই

স্কুল: দশম শ্রেণি, একাদশ শ্রেণি, দ্বাদশ শ্রেণি

বৃত্তিমূলক: একাদশ শ্রেণী, দ্বাদশ শ্রেণি

Student Credit Card 2021-23 সুবিধা গুলো কি কি?

দশম শ্রেণী থেকে স্নাতকোত্তর পর্যন্ত ছাত্রছাত্রীরা যে কোন সময়ে পড়াশোনার বিষয়ে কোনো ঋণ এর প্রয়োজন পড়লে সহজ শর্তে এই কার্ডের মাধ্যমে ব্যাংক হইতে ঋণ পেতে পারে। মুখ্যমন্ত্রী স্পষ্ট জানিয়ে দিয়েছেন যে সব ছাত্র-ছাত্রীরা স্নাতক-স্নাতকোত্তর, ডাক্তারি, আইএএস, আইপিএস, ডব্লিউবিসিএস, যেকোনো ডিপ্লোমা কোর্স বা প্রতিযোগিতা মূলক পরীক্ষাগুলোর জন্য অর্থের প্রয়োজন পড়লে এই কার্ডের মাধ্যমে সর্বোচ্চ ১০ লক্ষ টাকা পর্যন্ত ঋণ নেওয়া যাবে। দেশ বিদেশে পড়াশোনার খরচ বাবদ ঋণ নেওয়া যাবে। বিনা সুদে বা খুব অল্প পরিমাণ সুদে (4 শতাংশ সরল সুদ) ১৫ বছরের মধ্যে এ ঋণ পরিশোধ করতে পারবে। এক্ষেত্রে লোনের গ্যারান্টার রাজ্য সরকার নিজেই হবে । সেই কারণে ছাত্র-ছাত্রীদের পরিবারের সম্পত্তির পরিমাণ কত, সিকিউরিটির দেওয়ার ক্ষমতা আছে কিনা, অভিভাবক ঋণ পরিশোধ করতে পারবে কিনা, গ্যারান্টার এসব অতিরিক্ত কোন বিষয় লোন পাওয়ার ক্ষেত্রে অসুবিধা হবে না। শিক্ষার্থীরা ঋণ নেওয়ার বৈধ কারণ দেখালেই রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাংক, বেসরকারি ব্যাংক এবং কিছু আঞ্চলিক গ্রামীণ ব্যাংক এই ক্রেডিট কার্ডের মাধ্যমে ঋণ দেবে। দরিদ্র ঘরের ছেলেমেয়েরা শিক্ষা সরঞ্জাম, বইপত্র এমন কি হোস্টেলে থাকলে সেই খরচগুলো এই ঋণের টাকায় দেওয়া যাবে।


এ সম্পর্কে আরও বিস্তারিত জানতে সরকারি ওয়েবসাইট দেওয়া দুটি মেনুয়াল নিচে পিডিএফ ফরমেটে দেওয়া হল একটি ইংরেজিতে একটি বাংলায়। আপনারা এই দুটি পিডিএফ ডাউনলোড করে যত্ন সহকারে পড়ুন।


কত টাকা ও কত ইন্টারেস্ট দিতে হবে এই স্টুডেন্ট ক্রেডিট কার্ড- লোনের ক্ষেত্রে?

সরকারি ঘোষণা অনুযায়ী এখান থেকে সর্বোচ্চ ১০ লক্ষ টাকা পর্যন্ত লোন পাওয়া সম্ভব। চার লক্ষ টাকা পর্যন্ত ঋণে কোন প্রকার সুদ দিতে হবে না, চার লক্ষ টাকার বেশি হলে ৪ শতাংশ হারে সরল সুদ প্রদান করতে হবে। ১৫ বছরের মধ্যে এই ঋণ পরিশোধ করতে হবে।


স্টুডেন্ট ক্রেডিট কার্ড পাওয়ার জন্য কি কি ডকুমেন্টস প্রয়োজন?

এটি সম্পূর্ণ অনলাইন পদ্ধতি তাই নিম্নে বর্ণিত ডকুমেন্টগুলি আপলোড করার প্রয়োজন পড়বে

• যে আবেদন করবে তার রঙ্গিন ছবি
• সহ আবেদনকারী বা সহ ঋণগ্রহীতার রঙিন ছবি
• শিক্ষার্থীর স্বাক্ষর
• শিক্ষার্থীর আধার কার্ড যদি আধার কার্ড না থাকে তবে শিক্ষার্থীর দশম শ্রেণির বোর্ড নিবন্ধকরণ শংসাপত্র বা মাধ্যমিক সার্টিফিকেট
• অভিভাবকের ঠিকানার প্রমাণপত্র প্রয়োজন
• ভর্তির প্রাপ্তি বা রশিদ
• শিক্ষার্থীর প্যান কার্ড যদি না থাকে তবে আন্ডারটেকিং
• অভিভাবকের প্যান কার্ড যদি না থাকে তবে আন্ডারটেকিং
• কোর্স ফ্রী /টিউশান ফির ব্রোশিওর/ ডকুমেন্টের প্রাসঙ্গিক পৃষ্ঠা

Student Credit Card 2021 documents


কিভাবে স্টুডেন্ট ক্রেডিট কার্ড বা এস সি সি এর জন্য আবেদন করতে হবে?

এই আবেদনটি সম্পূর্ণ অনলাইন তাই আপনাকে আপনার মোবাইল অথবা ডেস্কটপ এর যেকোন ওয়েব ব্রাউজার ওপেন করে সেখানে www.wb.gov.in সাইটটির নাম লিখে এন্টার করতে হবে অথবা এখানে ক্লিক করুন

>ওয়েবসাইটটি ওপেন হওয়ার পর স্টুডেন্ট ক্রেডিট কার্ড লেখা জায়গায় ক্লিক করুন।
>এবার ডাবলু বি এস সি সি নতুন একটি পেজ ওপেন হবে, সেখানে স্টুডেন্ট রেজিস্ট্রেশন বটনএ ক্লিক করুন।
>এবার স্টুডেন্ট রেজিস্ট্রেশন ফরম ওপেন হবে যেখানে আপনাকে ছাত্রদের সমস্ত তথ্য দিতে হবে, যেমন নাম, ডেট অফ বার্থ, জেন্ডার, আধার কার্ড নাম্বার, প্রেজেন্ট কোর্স ডিটেলস, কন্টাক্ট ডিটেলস ও পাসওয়ার্ড দিয়ে রেজিস্টার করতে হবে।
এরপর দু’ধরনের ফরমের ফরমেট আসবে একটি যাদের আধার কার্ড রয়েছে একটি যাদের আধার কার্ড নেই। বেছে নিয়ে ফরমটি পূরণ করুন।
>এরপর একটি ইউনিক আইডি দেওয়া হবে যেটি আপনার মোবাইল নম্বর ও ইমেইল পাঠানো হবে সেটি আবেদন জমা দেওয়ার জন্য আপনার আইডি হিসেবে ব্যবহৃত হবে এই ইউনিক আইডি ভবিষ্যতে সমস্ত ক্ষেত্রে জন্য ব্যবহৃত হবে।
>এই রেজিস্ট্রেশন প্রক্রিয়া টি সম্পন্ন হলে একটি সফল বার্তা দেখাবে সেখানে আপনার আইডিটি থাকবে।
>এবার পরবর্তী ধাপে আবেদনটি জমা দিতে হবে এজন্য স্টুডেন্ট লগইনে আপনার আইডি ও পাসওয়ার্ড দিয়ে এন্টার করুন।
>এখানে ড্যাশবোর্ড থেকে পরবর্তী স্টেপগুলো শেষ করুন যেখানে আপনাকে ব্যাঙ্কের ডিটেলস এবং প্রয়োজনীয় ডকুমেন্টস গুলো আপলোড করতে হবে।
>রেজিস্টার করার পর শিক্ষার্থীর প্রয়োজনীয় ডকুমেন্টগুলি আপলোড করে সেভ এন্ড কন্টিনিউ করতে হবে।
>এক্ষেত্রে যদি কোন ভুল থাকে তাহলে এডিট লোন অ্যাপ্লিকেশন অপশনে ক্লিক করে সে গুলোকে সংশোধন করা যাবে কিন্তু একবার সাবমিট করে দিলে এরপরে ভুল সংশোধন করা যাবে না।
>সব ঠিক থাকলে পরবর্তীতে সাবমিট করতে হবে এর মানে আপনার সমস্ত লোনের তথ্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠান হেড এর কাছে চলে গেছে এবং এখান থেকে এইস ইডি অর্থাৎ উচ্চ শিক্ষা দপ্তরে সমস্ত ডকুমেন্ট সহ আবেদনটি রিভিউতে চলে যাবে।
>আবেদনকারী আইডি নম্বর এর সাহায্যে তার স্টুডেন্ট ক্রেডিট কার্ডের স্ট্যাটাস চেক করতে পারবেন।

 আরো বিস্তারিত জানতে নিচের দেওয়া লিংক থেকে পিডিএফ ফ্রী ডাউনলোড করে নিন।
তো আপনারা এই ব্লগের মাধ্যমে স্টুডেন্ট ক্রেডিট কার্ড সম্বন্ধীয় সমস্ত জরুরী তথ্য গুলি বিস্তারিত জানতে পারলেন। নিচে আরো কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয় দেওয়া হল।

অফিশিয়াল ওয়েবসাইট:

https://www.wb.gov.in/
https://wbscc.wb.gov.in/
https://banglaruchchashiksha.wb.gov.in/

এই বিষয়ে যেকোন প্রশ্নের জন্য অফিশিয়াল হেল্পলাইন নম্বর:

1800-102-8014

অফিশিয়াল ইমেইল এড্রেস:

contactwbscc@gmail.com
support-wbscc@bangla.gov.in

আইডিস্টুডেন্ট ক্রেডিট কার্ড এর জন্য কিভাবে এপ্লাই করবেন কি কি কাগজপত্র প্রয়োজন তার অফিশিয়াল অ্যানাউন্সমেন্ট ও যাবতীয় তথ্য এমনকি কিভাবে ফরমটি ফিলাপ করতে হবে তার নমুনাসহ বাংলা ও ইংরেজি পিডিএফ সংগ্রহ করে নিন নিচের লিংক হইতে।

বাংলা পিডিএফ
ইংরেজি পিডিএফ

অথবা
লিংক-১ বাংলা
লিংক-২ ইংরেজি

আশা করি এই স্টুডেন্ট লোন সমন্ধীয় এই পোষ্টটির দ্বারা আপনারা উপকৃত হবেন। বন্ধুদের মধ্যে শেয়ার করতে ভুলবেন না।

স্টুডেন্ট ক্রেডিট কার্ড জেনারেল কাস্টরা পাবে কি?

এই প্রকল্পটি জেনারেল, এসটি, এসসি ওবিসি সবার জন্যই প্রযোজ্য।

স্টুডেন্ট ক্রেডিট কার্ড প্রকল্পটির সুদের হার কত?

চার লক্ষ টাকা পর্যন্ত ঋণে কোন প্রকার সুদ দিতে হবে না, চার লক্ষ টাকার বেশি হলে ৪ শতাংশ হারে সরল সুদ প্রদান করতে হবে।

Share This:
Advertisement

Check Also

এসবিআই মুদ্রা লোন তথ্য

এসবিআই ই-মুদ্রা লোন কিভাবে পাওয়া যায় । ৫০ হাজার টাকা তাৎক্ষনিৎ মুদ্রা লোন অনলাইন আবেদন । SBI e-Mudra loan online apply।

এসবিআই ই-মুদ্রা লোনঃ বন্ধুরা ব্যবসা করছেন বা নতুন ব্যাবসা শুরু করতে যাচ্ছেন, হঠাৎ টাকার প্রয়োজন …

One comment

  1. 10000 হাজার টাকা 💰

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *